ঢাকাSunday , 12 June 2022
  1. অন্যান্য
  2. অর্থ ও বানিজ্য
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ক্রাইম নিউজ
  5. খেলাধুলা
  6. গণমাধ্যম
  7. জাতীয়
  8. বিনোদন
  9. বিভাগের খবর
  10. রাজনীতি
  11. সর্বশেষ সংবাদ
  12. সারা বাংলা

সীতাকুণ্ডে অগ্নিকাণ্ড: ৫ হাজার টাকা দিয়েই দায় সারলেন মালিকপক্ষ!

Barishal RUPANTOR
June 12, 2022 10:28 pm
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল: চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কন্টেইনার ডিপোতে অগ্নি দুর্গতদের হতাহতদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন মালিকপক্ষ। কিন্তু এ পর্যন্ত মিলেছে মাত্র ৫ হাজার টাকা। যা বিকাশে পাঠিয়ে দিয়ে দায় সেরেছেন তারা। রোববার (১২ জুন) এমন তথ্য জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালসহ নগরীর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতরা।

চমেক হাসপাতালের ৩৬নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আইটি অপারেটর নুরুল কবির বলেন, শনিবার (৪ জুন) দিনগত রাতে বিএম ডিপোতে আগুন লাগার পর বিস্ফোরণের ঘটনায় আমার মাথা থেকে মুখ পর্যন্ত পুড়ে যায়।

অন্য কন্টেইনারের আড়ালে আশ্রয় নিয়ে বেচে থাকার পর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আমাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করে। কিন্তু এরপর থেকে হাসপাতালে আহতদের দেখতে একবারও মালিকপক্ষের কেউ আসেনি।

তবে দু’দিন পর ফোনে যোগাযোগ করা হলে মালিকপক্ষ বিকাশে ৫ হাজার টাকা পাঠিয়ে দেন। এগুলো দিয়ে চিকিৎসা ব্যয় মেটাতে কষ্ট হচ্ছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষে দেওয়া বিনামূল্যের কয়েকটি ওষুধ মিললেও বহু ওষুধ ফার্মেসি থেকে কিনতে হচ্ছে। খাবার-দাবার তো আছেই। সবমিলিয়ে অর্থাভাবে কষ্ট পাচ্ছি।

একই কথা বলেছেন ৩১ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আহত জয়নালের মেয়ে নাজনীন আক্তার। নুরুল আলমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম, ৩০ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন শরীফ উদ্দিনের স্ত্রী সুমি বেগমও। তারা বলেন, ক্ষতিপূরণ বলতে এখনো কিছুই পায়নি। বিকাশে তাদের ৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে মাত্র। ফলে চিকিৎসা ব্যয় মেটানো অনেকের পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না। অর্থাভাবে কষ্ট পাচ্ছেন আহতদের স্বজনরা।

 

নগরীর পার্কভিউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ডিপোর সিকিউরিটি ইনচার্জ সার্জেন্ট আব্দুস সামাদ বলেন, ডিপোতে বিস্ফোরণে তার বাম পা ঝলসে গেছে। সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে ইতোমধ্যে তার বাম পা কেটে ফেলেছেন চিকিৎসকরা। কিন্তু মালিকপক্ষ একবারও দেখতে আসেননি। যোগাযোগের পর বিকাশে ৫ হাজার টাকা পাঠিয়ে দিয়েছে।

আহতের স্বজন সীতাকুণ্ডের দক্ষিণ টেরিয়ালের বাসিন্দা আব্দুর রহিম জানান, ঘটনার সময় থেকে এ পর্যন্ত বিএম কন্টেইনারের হতাহত কর্মচারী-কর্মকর্তাদের সঙ্গে অমানবিক আচরণ করছে বিএম কন্টেইনার কর্তৃপক্ষ। শুনেছি ক্ষতিপূরণ দিতে নামের তালিকা করেছে। এর বাহিরে আর কোনো খবর নেননি তারা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হতাহতদের চিকিৎসা ও ক্ষতিপূরণ বিষয়ক সমন্বয়ক এবং স্মার্ট জিন্সের মার্চেন্ডাইচার আব্দুল আউয়াল বলেন, প্রত্যেক আহত ব্যক্তিকে চিকিৎসা খরচ চালাতে আমরা ৫ হাজার টাকা করে দিয়েছি। সবাইকে বলেছি আরও টাকা লাগলে আমাদের জানাতে।

 

প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে সবাইকে সহযোগিতা করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ডিসি অফিস থেকে সাহায্যের একটা তালিকা করা হয়েছে। তবুও আমরা সহযোগিতা করতে পেরেছি। এটাই আমাদের স্বস্তি।

সরকারের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করা হচ্ছে বলে মালিকপক্ষের কি কোনো দায় নেই? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমরা হতাহতদের ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছি। নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে ১০ লাখ এবং আহত প্রত্যেকের পরিবারকে ৬ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা বলেছি।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতদের দেখতে যাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মালিকপক্ষ তো ইতোমধ্যে কয়েকবার হাসপাতালে গেছেন। চিকিৎসাধীন আহতদের খোঁজ খবর নিয়েছেন। এ বিষয়ে সংবাদ মাধ্যমে তো মালিকপক্ষের বক্তব্যও প্রচার হয়েছে।

কিন্তু বাস্তবে জানা গেল মালিকপক্ষের স্মার্ট গ্রুপের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) মেজর (অব.) শামছুল হায়দার চৌধুরী রোববার রাতে চমেক হাসপাতালে যান। ওই সময় সাংবাদিকদের বলেন, তিনি হতাহতদের দেখতে এসেছেন।

স্মার্ট গ্রুপ হতাহতদের পাশে আছেন। ওই সময় হতাহতদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া ও নিহতদের স্বজনদের চাকরির ব্যবস্থা করার কথা বলেন তিনি। এমনকি কর্মচারী পরিবারে শিশু থাকলে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত তার পরিবারকে বেতনের সমপরিমাণ টাকা প্রদান এবং উপার্জনক্ষম সদস্য থাকলে চাকরির ব্যবস্থা করার কথা বলেন।

তবে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতদের দেওয়া তথ্য থেকে সত্যতা মিলে মালিকপক্ষ মূলত হতাহতদের কাউকে এখনো পর্যন্ত দেখতে যাননি। যার সত্যতা মিলে হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদারের বক্তব্যেও।

তিনি বলেন, রোববার ও সোমবার দুই দিন হাসপাতালে মালিকপক্ষের দু’জন আসলেও তারা হতাহতদের দেখতে কোনো ওয়ার্ডে ঢুকেননি। তারা শুধু পুলিশ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ডিপোর পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেছেন।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।