ঢাকাSaturday , 11 June 2022
  1. অন্যান্য
  2. অর্থ ও বানিজ্য
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ক্রাইম নিউজ
  5. খেলাধুলা
  6. গণমাধ্যম
  7. জাতীয়
  8. বিনোদন
  9. বিভাগের খবর
  10. রাজনীতি
  11. সর্বশেষ সংবাদ
  12. সারা বাংলা

ঝালকাঠিতে ৪০তম বিসিএসএ সুপারিশপ্রাপ্তদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সহকারী পুলিশ সুপার

Barishal RUPANTOR
June 11, 2022 5:58 pm
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস এ্যাসসিয়েশন (৪০তম বিসিএস) পরীক্ষা উতীর্নদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর সার্কেল এর সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা। ঝালকাঠি সদর উপজেলার ৩ জন ও রাজাপুর উপজেলার ২জনসহ মোট ৫জন বিসিএস এ সুপারিশ প্রাপ্তদের রাজাপুর সার্কেল অফিসের পক্ষ থেকে এই শুভেচ্ছা জানানো হয়। এদিকে সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা কোন প্রকার হয়রানি ও আর্থিক সুবিধা গ্রহণ ছাড়াই পুলিশ ভ্যারিফিকেশন করেছেন বলে জানিয়েছেন সুপারিশপ্রাপ্তরা।

 

শুধু তাই নয় প্রার্থীর বাড়িতে গেলে আপ্যায়ন করতেও পুলিশের পক্ষ থেকে আগেই নিষেধ করা হয়েছে বলে জানান শিক্ষা ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত মোঃ নাজমূল হুদা । ঝালকাঠি সদর উপজেলার ৩ জন হলেন কাঠপট্টি রোড এলাকার স্বপন কুমার সাহার মেয়ে লোপা সাহা (কাস্টমস ক্যাডার) কান্ডারগাতি গ্রামের মোঃ মোস্তফা হাওলাদারের ছেলে মোঃ মহিউদ্দিন (প্রাণী সম্পদ ক্যাডার )এবং একই গ্রামের মোঃ হাবিবুর রহমানের ছেলে মোঃ নাজমুল হুদা শিক্ষা ক্যাডার হিসেবে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন।

 

এছাড়াও রাজাপুর উপজেলার সুপারিশপ্রাপ্ত ২জন প্রার্থী হলেন পূর্ব ইন্দ্র পাশা গ্রামের মোঃ আবুল কালাম আজাদ এর মেয়ে রিফাত জাহান। তিনি প্রাণী সম্পদ ক্যাডার বিভাগের জন্য সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছে। একই উপজেলার কাঠিপাড়া গ্রামের মোঃ আঃ সালামের ছেলে মোঃ আকরাম হোসেন শিক্ষা ক্যাডার হিসেবে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন।

 

এ বিষয় রিফাত জাহান তুলি বলেন,,পুলিশ ভ্যারিফিকেশন নিয়ে আমাদের মাঝে একটা ভয় ছিল। পুলিশ কি না কি বলে আবার কোনো অজুহাত দেখিয়ে টাকা পয়সা চায় কি না ইত্যাদি। তবে রাজাপুর সার্কেল এর সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা স্যার আমাদের বাড়িতে আসার পর তার আচরণ দেখে অবাক হয়েছি।আন্তরিকতার সাথে হয়রানি মুক্ত সেবা প্রদান করার জন্য তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

 

পুলিশ ভ্যারিফিকেশনস নিয়ে শিক্ষা ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত মোঃ আকরাম হোসেন বলেন,,সহকারী পুলিশ সুপার জনাব মোঃ মাসুদ রানা বাড়িতে এসে আমার পরিবারের সাথে হাসি মুখে কথা বলেছেন তিনি প্রকৃতপক্ষে একজন ভালো মানুষ ।পুলিশের এতো বড় অফিসার অথচ তার কথা শুনে একবারের জন্যও মনে হয়নি তিনি একজন এএসপি।

 

টাকা পয়সা তো দূরের কথা আমরা তাকে বাসায় আপ্যায়ন পর্যন্ত করাতে পারিনি। অথচ তার অফিসে যাওয়ার পর তিনি আমাদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এবং মানুষের সেবা করার জন্য উপদেশ প্রদান করেছেন। সত্যি তার আচরণে মুগ্ধ হয়েছি আমরা সব সময় তার সুস্বাস্থ্য ও মঙ্গল কামনা করি।

 

এ বিষয় সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা বলেন,,,আমার উপর অর্পিত দ্বায়িত্ব আমি যথাযথ ভাবে পালন করার চেষ্টা করেছি। কতটুকু পেরেছি জানি না তবে চেষ্টার কোন ত্রুটি ছিল না। একটি বিষয় সব সময় মাথায় ছিল পুলিশ নিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে এখনও যে ভয় বা বাজে ধারণা রয়েছে সেটা থেকে বের হয়ে আসতে হবে।

 

তিনি আরও বলেন,, আমরা ব্রিটিশ কিংবা পাকিস্তানের পুলিশ নই।আমরা আধুনিক পুলিশ সুতরাং জনগণকে হয়রানি মুক্ত নির্ভেজাল সেবা নিশ্চিত করাই আমাদের মূল লক্ষ।সেটা হোক কোন মামলা তদন্ত পুলিশ ক্লিয়ারেন্স অথবা ভ্যারিফিকেশন। ৪০ তম বিসিএস ক্যাডার হিসেবে বিভিন্ন বিভাগের জন্য যারা সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন সকলের কর্ম জীবন সুন্দর হোক এই কামনা করি।

 

শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মজিবুর রহমান খান, শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডাঃ অসীম কুমার সাহা, রাজাপুর থানার ওসি পুলক চন্দ্র রায়, সার্কেল ইন্সপেক্টর মোঃ আলীনূর হোসেন, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায়র সাংবাদিকসহ প্রার্থীদের সাথে আগত অভিভাবকরা।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।